সিরিজ বাংলাদেশের

প্রকাশ: ২০১৮-১০-২৫ ০৮:৩৩:৫২ || আপডেট: ২০১৮-১০-২৫ ০৮:৩৩:৫২

কর্ণফুলী স্পোর্টস ডেস্ক:

আটোসাটো বোলিং করে বাংলাদেশকে জয়ের ভিত গড়ে দিয়েছিলেন বোলাররা। সেই ভিতের ওপর দাড়িয়ে রীতিমতো আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করলেন দুই ওপেনার ইমরুল কায়েস ও লিটন দাস। আর এই ব্যাটিং-বোলিং মিলিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেও জিতে নিলো বাংলাদেশ ৭ উইকেটে।

আগে ব্যাট করা জিম্বাবুয়ে ৭ উইকেটে করেছিলো ২৪৬ রান। জবাবে ৪.৫ ওভার ও ৭ উইকেট হাতে রেখে লক্ষ্যে পৌছায় বাংলাদেশ।

টানা এই দুই জয়ের ফলে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ বাংলাদেশ এক ম্যাচ হাতে রেখেই জিতে ফেললো। এটা বাংলাদেশের ২৩তম ওয়ানডে সিরিজ জয়। আর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এটা ১০ম সিরিজ জয় বাংলাদেশের।

দলীয় ১৮ রানে প্রথম উইকেট হারালেও জিম্বাবুয়ের শুরুটা একেবারে খারাপ হয়নি। জুওয়াও ও শেন উইলিয়ামসকে নিয়ে দুটি ভালো জুটি করেন ব্রেন্ডন টেলর। টেলর বাংলাদেশের বিপক্ষে নিজের অষ্টম ফিফটি তুলে নেন। এটা ছিলো বাংলাদেশের বিপক্ষে তার দশম বারের মতো পঞ্চাশ পার করা ইনিংস; বাকী দু বার সেঞ্চুরি করেছেন।

উইলিয়ামস ৪৭ রান করে আউট হন দিনের সবচেয়ে সফল বোলার সাইফউদ্দিনের বলে। অন্য দিকে ৭৩ বলে ৭৫ রানের ইনিংস খেলেন টেলর। এরপর সিকান্দার রাজা এসে ৪৯ রানের এক ইনিংস খেলেন। এরপর জিম্বাবুয়ের রানের চাকা একদম চেপে ধরেন সাইফউদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান। ফলে হাতে উইকেট রেখেও শেষ ১০ ওভারে তেমন রান তুলতে পারেনি সফরকারী দলটি। সাইফ ৪৫ রানে নেন ৩ উইকেট।

জবাব দিতে গিয়ে বাংলাদেশ দারুন একটা সূচনা পায় লিটন দাস ও ইমরুল কায়েস। দু জনে ১৪৮ রান যোগ করেন উদ্বোধনী জুটিতে। এটা ছিলো বাংলাদেশের ১৭তম শতরানের উদ্বোধনী জুটি। রানের বিচারে এটা বাংলাদেশের পঞ্চম বৃহত্তম উদ্বোধনী জুটি।

এই জুটি ভাঙে লিটন দাসের অপ্রত্যাশিত এক আউটে। সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১৭ রান দূরে আউট হয়ে যান তিনি। ৭৭ বলে ১২টি চার ও একটি ছক্কায় ৮৩ রানের ইনিংস খেলেন লিটন।

লিটন ফেরার পরপরই বিনা রানে ফিরে আসেন ফজলে রাব্বি। অভিষেক ম্যাচেও শূন্য রানে আউট হয়েছিলেন রাব্বি। অভিষেকের থেকে টানা দুই ম্যাচে শূন্য রান করার বিরল ঘটনা ঘটালেন তিনি।

লিটনের পথ ধরে সেঞ্চুরি মিস করেন ইমরুলও। তিনি মাত্র ১০ রান দূরে থেমে যান। ১১১ বলে ৭টি চারে সাজিয়ে ইমরুল ৯০ রানের ইনিংস খেলে ফেরেন। এই সেঞ্চুরি করলে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে সেঞ্চুরি হতো তার।

বাকী পথটুকু নির্বিঘ্নে পাড়ি দিয়েছেন মুশফিকুর রহিমও মোহাম্মদ মিঠুন। মুশফিক ৪০ রানে ও মিঠুন ২৪ রানে অপরাজিত থাকেন।

জিম্বাবুয়ের পক্ষে ৩টি উইকেটই নেন সিকান্দার রাজা।

প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ ২০১৮-এ এক ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ জয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল বুধবার রাতে এক অভিনন্দন বার্তায় তিনি এ অভিনন্দন জানান। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং এ তথ্য জানিয়েছে।

ট্যাগ :