চুয়াডাঙ্গার চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্র সুভাষ নিখোঁজের পর হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন

প্রকাশ: ২০১৮-১১-০৪ ০৫:২৩:১৬ || আপডেট: ২০১৮-১১-০৪ ০৫:২৩:১৬

শামসুজ্জোহা পলাশ, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:

চুয়াডাঙ্গার চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্র সুভাষ কুমার হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত তিন যুবককে গ্রেফতার করেছে সদর থানা পুলিশ। শনিবার রাতে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো- শহরের ফার্ম পাড়ার মকবুল হোসেনের ছেলে সুমন (১৮), সিনেমা হল পাড়ার মিরাজুল ইসলামের ছেলে ইরাক (১৭) ও নুরনগর কলোনী পাড়ার ফুয়াদ হোসেনের ছেলে ফরহাদ (২০)। গ্রেফতারের পর গ্রেফতারকৃতরা স্বীকার করেছে সুভাষের কাছে থাকা টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনতাই করতেই তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়।

পুলিশ জানায়, গত ২৪ অক্টোবর রাতে সদর উপজেলার ৬৩ আড়িয়া গ্রামের হিন্দু ধর্মের গণেশ চন্দ্রের ছেলে সুভাষ পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথে চুয়াডাঙ্গা শহরে পান্না সিনেমা হলে নামযজ্ঞ অনুষ্ঠান দেখতে আসে। রাত ১২টার পর থেকে সে নিখোঁজ হয়। পরদিন সকালে নামযজ্ঞ অনুষ্ঠানের পাশের একটি গলি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: কলিমুল্লাহ জানান, সুভাষের মরদেহ উদ্ধারের পরই পুলিশ হত্যার মোটিভ উদ্ধারে মাঠে নামে। প্রাথমিকভাবে পাওয়া একটি সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে অনুসন্ধান শুরু করে পুলিশ। অনুসন্ধানের ১০ দিন পর পুলিশ হত্যার মোটিভ উদঘাটন করে এবং প্রযুক্তির সহযোগিতায় শনিবার রাত ১০টার দিকে জেলার আলাদা তিনটি স্থান থেকে সুমন, ইরাক ও ফরহাদকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: কলিমুল্লাহ আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত তিন জন স্বীকার করে মাদকের টাকা জোগাড় করতে সুভাষের কাছে থাকা নগদ টাকা ও ফোন ছিনতাই করতে যায়। কিন্তু টাকা ও মোবাইল দিতে অস্বীকৃতি জানালে তারা তিন মিলে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে সুভাষকে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার হোসেন খাঁন জানান, আজ রোববার দুপুরে তাদেরকে আদালতে সোর্পদ করা হবে।

ট্যাগ :